পরিচ্ছন্ন পর্যটনে অনবদ্য মাওলিনং

প্রকৃতি যেখানে আপন রূপে বিদ্যমান -

0
162
মাওলিনং শব্দের অর্থ 'সৃষ্টিকর্তার নিজের বাগান'। কয়েক প্রজন্ম ধরেই বাগান করে আসছেন মাওলিনংবাসীরা।

সাম্প্রতিক সময়ে মেঘালয়ার মাওলিনং, ভারতের উত্তর-পূর্ব কোণে থাকা শিলংয়ের ছোট্ট গ্রামটি এশিয়ার সবচাইতে পরিচ্ছন্ন গ্রাম হিসেবে সুনাম কুড়াচ্ছে সর্বত্র। হয়ে উঠেছে দেশী-বিদেশী পর্যটকদের জন্য অনন্য এক আকর্ষণ বিন্দু। প্রতিদিন সেখানে সৌন্দর্যের টানে হাজির হচ্ছে কয়েকশত দেশী-বিদেশী পর্যটক।

ডওকি নদী, মাওলিনং।

স্থানীয় পরিভাষায় মাওলিনং শব্দের অর্থ ‘সৃষ্টিকর্তার নিজের বাগান’। মাওলিনং গ্রাম সবার নজরে আসে ২০১৫ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ‘পরিচ্ছন্ন ভারত’ ক্যাম্পেইন প্রচারের সময়ে মেঘালয়ার পরিচ্ছন্ন মাওলিনংয়ের ভূয়সী প্রশংসা করার ফলে। মাওলিনং সর্বপ্রথম পরিচিতি লাভ করেছিলো ২০০৪সালে ‘ডিস্কোভারি ইন্ডিয়া’ সাময়িকীর প্রতিবেদনে ‘ভারতের সবচাইতে পরিচ্ছন্ন গ্রাম’ হিসেবে।

জীবন্ত গাছের শেকড়ে গড়া ব্রীজ।

মাওলিনংবাসীদের বক্তব্য অনুসারে, ১৯৯০সালে থেকেই গ্রামটি প্লাস্টিক মুক্ত ও পরিবেশবান্ধব। ঘরবাড়ি তৈরি করা হয় এখানে মূলত বাঁশ আর কাঠের সাহায্যে। মাওলিনং গ্রামবাসী পরিবেশবান্ধবতা বজায় রাখতে গ্রামটিকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখেন। নির্দিষ্ট দূরত্ব পর পর বাঁশের তৈরি ডাস্টবিনে ময়লাসামগ্রী জমা করা হয়, এবং তা থেকে জৈবসার প্রস্তুত করা হয়। এছাড়াও আছে নয়নাভিরাম সব বাগান। কয়েক প্রজন্ম ধরেই বাগান করে আসছেন মাওলিনংবাসীরা। প্রকৃতিকে পরিবেশবান্ধব রাখতে তারা জলাশয় পারাপারের জন্য তৈরি করেছে জীবন্ত গাছের  শিকড়ের তৈরি সেতু। এমনই চিরসবুজ, নিরাপদ, পরিবেশবান্ধব ও ভ্রমণবান্ধব মাওলিনংকে পেতে চায় সবাই। তাই সবুজ প্রকৃতির ছোঁয়া পেতে সেখানে ভ্রমনপিয়াসীদের পদচারণা বাড়ছে প্রতিদিনই।

মাওলিনংবাসীদের তৈরি করা পরিবেশবান্ধব ময়লার ঝুড়ি।

এতো কাছের শহর শিলংয়ের মাওলিনং এশিয়ার সবচাইতে পরিচ্ছন্ন গ্রাম হিসেবে সুনাম কুড়াচ্ছে সর্বত্র। অন্যদিকে বিশ্বের সবচাইতে দূষিত ও অপরিচ্ছন্ন শহর হিসেবে পরিচিতি পাচ্ছে। ফলত মাওলিনং ঘুরে দেখতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে পর্যটক আসছে আর ঢাকা দেশীয় ও বিদেশি পর্যটকদের কাছে জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে।
রাষ্ট্রের দায়িত্বে থাকা জনপ্রতিনিধিদের সদিচ্ছা আর জনগনের সচেতনতাই পারে বর্তমান অবস্থার পরিবর্তন আনতে।
দেশব্যাপী পরিচ্ছন্নতার অভিযান চালিয়ে আমরাও বাংলাদেশ ট্যুরিজমকে পর্যটকদের কাছে আরো আকর্ষণীয় ও নিরাপদ করে তুলতে পারি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here