থমাস কুককে ১৪.২ মিলিয়নে কিনে নিলো চীনা ফোসুন

এক ঝটকায় থমাস কুকের সমস্ত ট্রাভেল এজেন্সি, ট্রেডমার্ক, ওয়েবসাইট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাকাউন্টগুলোর মালিক বনে গেলো চীনা প্রতিষ্ঠান ফোসুন। ১৭৮ বছরের পুরনো ব্রিটিশ এই প্রতিষ্ঠানটি নিজেদেরকে দেউলিয়া ঘোষণা করে বন্ধ হয়ে গিয়েছিলো চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে। ফলে সরাসরি কর্মহীন হয়ে পড়ে প্রায় বাইশ হাজার মানুষ।

0
47

আধুনিক বিশ্ব পর্যটনশিল্পের ইতিহাসে সবচাইতে পুরনো ও বিখ্যাত নাম হচ্ছে থমাস কুক। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে দেউলিয়া হয়ে বন্ধ হয়ে যাওয়া ১৭৮ বছরের পুরনো এই ব্রিটিশ ট্রাভেল এজেন্সি এই মাসেই ফিরছে আবারও নতুন করে। ১৪.২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যে বিশ্ববিখ্যাত এই ট্রাভেল এজেন্সির নাম কিনে নিলো চীনা যৌথ কোম্পানি ফোসুন। ফলে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে থাকা থমাস কুকের খ্যাতিমান হোটেল কাসা কুক ও কুক’স ক্লাবসহ সমস্ত ট্রাভেল এজেন্সি, রেস্টুরেন্ট, ট্রেডমার্ক, ওয়েবসাইট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে থাকা অ্যাকাউন্টের মালিকানা চলে গেলো ফোসুনের কাছে।

আধুনিক বিশ্ব পর্যটনশিল্পের ইতিহাসে সবচাইতে পুরনো ও বিখ্যাত নাম হচ্ছে থমাস কুক। এটি ১৭৮বছরের পুরনো প্রতিষ্ঠান।

দেশে চলমান অর্থনৈতিক মন্দার কারনে বেশ কিছু সময় ধরেই লোকসানের মুখে চলছিলো পর্যটনশিল্পের অগ্রদূত হিসেবে পরিচিত এই ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠানটি। ব্যক্তিগত বিনিয়গকারীদের ২৫ কোটি মার্কিন ডলার রক্ষা করতে চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে নিজেদেরকে দেউলিয়া ঘোষণা করে এজেন্সিটি। ফলে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা প্রায় বাইশ হাজার কর্মচারী চাকুরী হারায়। এছাড়াও, উক্ত সময়ে থমাস কুকের মাধ্যমে ঘুরতে বের হওয়া ১.৪ মিলিয়ন পর্যটককেও দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করেছে দেশটির সরকার। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে এটিই ব্রিটেনের সবচাইতে বড় প্রত্যাবাসন।

থমাস কুকের সবচাইতে বড় শেয়ারের মালিক ছিলো হংকংয়ের এই ব্যবসায়িক জোটের প্রধান কোম্পানি ফোসুন আগে থেকেই। ফোসুন ফ্রান্সের বিখ্যাত ক্লাব মেড জয়েন্টেরও মালিক। থমাস কুক স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়ে যাবার আগেই চীনা এই কোম্পানি শেষ রক্ষা করতে এগিয়ে আসে। কিনে নেয় প্রতিষ্ঠানটির নাম এবং একইসাথে উদ্ধার করে কোম্পানির সাথে জড়িত থাকা ব্যবসায়ীদেরকে।

এ বিষয়ে ফোসুনের চেয়ারম্যান কিয়ান জিয়ানং বলেছেন, ‘থমাস কুক পর্যটনশিল্পের অগ্রদূত এবং এই নামের মূল্য ফোসুন সবসময়ই বুঝেছে। থমাস কুকের নাম বিশ্বব্যাপী আরও ছড়িয়ে ও একে আরও বড় করবার মাধ্যমেই ফোসুন এগিয়ে যাবে। আর এর ফলে বাড়বে চাইনিজ আউটবাউন্ড ট্যুরিজমও।’

এছাড়াও ভিং গ্রুপ নামে পরিচিত থমাস কুকের স্কেণ্ডিনেভিয়ান ব্যবসায়ের অংশ কিনে নিয়েছে নরওয়ের কোটিপতি ব্যবসায়ী পিটার স্টোরডালেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে